যারা আপনাকে ভালো বলেন তাদের সাথে বেশি মিশুন।

0
537
যারা আপনাকে ভালো বলেন তাদের সাথে বেশি মিশুন
যারা আপনাকে ভালো বলেন তাদের সাথে বেশি মিশুন

যারা আপনাকে ভালো বলেন এবং আপনার সামর্থ্যে আস্থা রাখেন, তাদের সাথে বেশি বেশি মিশার চেষ্টা করেন। আপনার ভালো কাজের প্রংসা যে লোকটা করে না, কিছু মানুষ থাকে যারা ভালো কাজের প্রংসা কখনো করে না। কিন্তু যখন কোন খারাপ কাজ করবেন বা ভুল কাজ করবেন তখন সে ঝাপিয়ে পরে। তুই খারাপ, তুই এই, তুই সেই কিন্তু আপনি এত ভালো কাজ করলেন সে কখন একটা থেংক-কিউ বলে নাই। কিন্তু একটা খারাপ কিছু করবেন, একটা ভুল কাজ করবেন সে একদম ঝাপিয়ে পরবে।

আপনার চোদ্দ গোষ্টি উদ্ধার করে ফেলবে এটাই বাস্তবতা আপনি একটু খেয়াল করলে দেখতে পারবেন এই গুলা। আমি আপনাকে বলবো যেই মানুষটা আমার ভালো কাজের প্রংসা করে না সেই মানুষ টার আমার খারাপ কাজের নিন্দা করতে দিব না, দিব না সে যেই হোক না কেন। বলতে পারে নিন্দুকেরে বাসি আমি সবার চেয়ে ভালো, আমি আপনাকে বলবো শাসন করা তারই সাজে সোহাগ করে যে। সো এই ধরণের মানুষ গুলো ভাইরাসের মত আর এক ধরণের মানুষ দেখবেন যারা কখনই প্রংসা করতে পারে না।

একটা গল্প বলি শত্তি ঘটনা নয় একটা কুকুর ছিল যে কুকর টার একটা অখ্রব ক্ষমতা ছিল ক্ষমতাটা কি ওই কুকুর টা পানির উপর দিয়ে হাটতে পারত, দৌরাতে পারত। তা কুকুর টার মালিক তার বিভিন্ন বন্ধু বান্ধবিকে ইনভাইট করত বাসায়, ইনভাইট করার পর কুকুরের সেই ক্ষমতাটা দেখাতো এবং সবাই তাকে খুব প্রংসা করতো।এই বেপারটা তার এক ধরণের আনান্দ দিত। ওই লোকটার একটা বন্ধু ছিল যে, সেই বন্ধুটা কখনই কারো সম্পর্কে ভালো কিছু বলে না।

তাকে একদিন ইনভাইট করা হল দুপুরে খাওয়া-দাওয়ার পর বিকাল বেলা দুই বন্ধু মিলে একটা পুকুরের পারে বসে আছে। তখন যিনি কুকুরের মালিক বন্ধু, সেই বন্ধুটা তার ইয়ার-গান দিয়ে একটা পাখি শিকার করলেন তখন ওই পাখিটা ঝুপ করে পানিতে পরে গেলো। আর ওই কুকুরটা দৌড়ে গিয়ে পাখিটা মুখ দিয়ে ধরে নিয়ে আসল। তখন পাশে যেই বন্ধুটা ওই বন্ধুটা কিছুই বলে না। তখন কুকুরের মালিক বন্ধুটা উস-খুস করে সে ভাবে কিছু বলে না কেন, তখন সে তার বন্ধুকে জিগ্গাসা করে।

দোস্ত একটা কথা বলতাম হ্যা কি হয়েছে এই যে তুই আমার কুকুর টাকে দেখছিচ না, হ্যা তো তুই আমার কুকুর টার মধ্যে অসাভাবিক কিছু দেখছিচ। হ্যা দেখলাম তো দোস্ত কি দেখলি তোর কুকুর তো সাতার পারে না। তো এই জন্যই বললাম এই ধরণের যে মানুষ গুলো তারা হচ্ছে ভাইরাস ভাইরাস আমি তাদের নাম দিছি ভাইরাস। তাদের কাছ থেকে দূরে থাকেন যেই হোক না কেন। এই রকম প্রচুর মানুষ আপনার পাশেই আছে, এরা আপনার জীবনের কোন কাজেই আসবে না।বরং এরা আপনাকে থামিয়ে দিবে সামনে এগতে দিবে না।

যদি সফল হতে চান তা হলে এই পোষ্ট টি আপনার জন্য        ফেসবুকে অপদার্থের বন্ধু হওয়ার চাইতে জ্ঞানীর ফলোয়ার হওয়া ভালো

Leave a Reply