মাইক্রোসফট অফিস

মাইক্রোসফট এর প্রতিষ্ঠাতা হচ্ছে  মাইক্রোসফট কর্পোরেশন, আবার এই সফটওয়্যার এর মালিক হচ্ছে বিল গেটস্, মাইক্রোসফট একটি অফিস এ্যাপ্লিকেশন সফটওয়্যার। এর মাধ্যেমে আমরা দৈনন্দিন জীবনে বিভিন্ন ধরণের অফিসের কাজ কর্ম করে থাকি। এই মাইক্রোসফট অফিসের  মধ্যে উল্লেখ যোগ্য হচ্ছে।

মাইক্রোসফট ওয়ার্ডঃ মাইক্রোসফট ওয়ার্ড হচ্ছে একটি ওয়ার্ড প্রোসেসিং সফটওয়্যার, মাইক্রোসফট ওয়ার্ড এর মাধ্যমে আমরা বিভিন্ন ধরনের চিঠি বা দলিল দস্তাদির কাজ কর্ম করে থাকি, মাইক্রোসফট ওয়ার্ড সারা বিশ্বে একটি জনপ্রিয় প্রোগ্রাম। ওয়ার্ড প্রোসেসিং ছাড়া সারা বিশ্বে অফিস আদালতের কার্জ ক্রম অসম্ভব হয়ে পড়ে, যদিও হাতে লিখে কাজটি করা যায়, কিন্তু বিষয়টি যেন এ্যানালগের মতে হয়ে পড়ে বর্তমান  ডিজিটাল বিশ্বে সে কথা ভাবতে গেলে মাইক্রোসফট ওয়ার্ড হচ্ছে একটি জনপ্রিয় মাধ্যম।

 

এবার আমরা মাইক্রোসফট এক্সেল এর সম্বন্ধে জানতে চেষ্টা করি

মাইক্রোসফট এক্সেলঃ মাইক্রোসফট এক্সেল হচ্ছে একটি  স্প্রেডশিট এনালাইসিস প্রোগ্র্রাম, এটিও একটি বহুল জনপ্রিয় প্রোগাম এর মাধ্যমে আমরা দৈনন্দিক হিসাব নিকাশ এর কাজ করে থাকি। মাইক্রোসফট এক্সেলের মাধ্যমে আমরা বিশ্বের বিভিন্ন ব্যাংকিং, অফিস আদালতের ডাটা এন্টি করে রাখতে, আমরা এই জনপ্রিয় মাইক্রোসফট এক্সেল সফটওয়্যার ব্যবহার করে থাকি।  মাইক্রোসফট এক্সেল প্রোগ্রামটি ব্যবহার করে আমরা অনেক বড় ধরণের হিসাব অতি অল্প সময়ে করে থাকি, যা হাতে কলমে করতে গেলে কয়েক ঘন্টা,কয়েক দিন বা কয়েক মাস লেগে যেতে পারে, সে দিক বিবেচনা করতে গেলে সবার আগে চলে আসে মাইক্রোসফট এক্সেল, সে জন্য মাইক্রোসফট অফিস একটি গুরুত্বপূর্ণ  প্যাকেজের  মাইক্রোসফট এক্সেল।

মাইক্রোসফট পাওয়ার পয়েন্টঃ মাইক্রোসফট পাওয়ার পয়েন্ট হচ্ছে একটি প্রেজেন্টেশন সফটওয়্যার। মাইক্রোসফট পাওয়ার পয়েন্ট এর মাধ্যমে আমরা বিভিন্ন ধরনের প্রেজেন্টেশন এর কাজ কর্ম করে থাকি।