ব্লগিং এন্ড ইউটিউব | কোনটি বেশি ভালো

0
644
ব্লগিং এন্ড ইউটিউব কোনটি বেশি ভালো

ব্লগিং এন্ড ইউটিউব, কোনটি বেশি ভালো। বর্তমানে ব্লগিং আর ইউটিউব এই দুইটাই অনেক বেশি জনপ্রিয়। ইন্টারনেট জগতে এটাই শ্রেষ্ঠ তম পন্থা। আসলে এই দুটিই হচ্ছে ইনকামের লিগাল পথ। অনলাইনে যারা অলরেডি কাজ করছে বা যারা নতুন আসতে চাচ্ছে তাদের এই দুই বিষয়ে বিস্তারিত জ্ঞান থাকা দরকার। আমি এখানে দুটি বিষয় নিয়ে বিস্তারিত আলোচনা করবো।

প্রথমেই জেনে নি ব্লগ এবং ইউটিউব চ্যানেল হতে কি কি উপায়ে ইনকাম করা যায়।

  • গুগোল অ্যাডসেন্স
  • সিপিএ মারকেটিং
  • অ্যাফিলেট কমিশন
  • ইসপন্ছার পোষ্ট
  • নিজিস্ব প্রোডাক্ট বিক্রি
  • ব্লগিং

ব্লগিং হচ্ছে গুগোলের একটি প্লাটফর্ম, সর্ব প্রথম গুগোল এই প্লাটফর্ম চালু করেছে, তারপর অন্যান্য কোম্পানী গুলো চালু করেছে, এই ব্লগার সাইট কে পাল্লা দেওয়ার জন্য। এখানে ব্লগিং করতে হলে টাকা ইনভেস্ট করতে হয়, কারন ব্লগিং করতে হলে ডোমেইন, হোস্টিং কিনতে হয় এজন্য ইনভেস্ট করার প্রয়োজন হয়। আবার অনেক ওয়েবসাইট আছে যেখানে ফ্রিতে ব্লগিং করতে পারবেন। তার মধে:- www.blogger.com/, www.wordpress.com/ এই দুইটা অনেক বেশি জনপ্রিয়। ব্লগে আর্টিকেল লিখতে হয়। আবার গুগোলের প্রথমে নিয়ে আসার জন্য এসইও করতে হয়। তার পর আসে টাকা ইনকামের কথা।

বর্তমানে ইউটিউব সবচেয়ে বেশি জনপ্রিয় একটি সাইট। এই প্লাটফর্ম আমাদেরকে পার্টনারশিপ সুযোগ দেওয়ার কারণে মূলত এটি জনপ্রিয়। ইউটিউব এরপর আরও অনেক অনেক ভিডিও শেয়ারিং ওয়েবসাইট এসেছে কিন্তু তারা কেউ ইউটিউব এর সাথে পাল্লা দিয়ে পারেনি। তারাও টিকে আছে কিন্তু ইউটিউব এর মত হতে পারেনি। যাক সে কথা, ইউটিউব ও গুগোলের একটি প্লাটফর্ম এ কারণে এটি জনপ্রিয় হয়েছে আরও দ্রুত গতিতে। এখন কথা হল, ইউটিউবিং করা একটা সহজ বেপার বলে মনে করছি, একটি জিমেল একাইন্ট হলেই ইউটিউব এ একটা চ্যাঁনেল খোলা যায়, আর আজ কাল ছোট বাচ্ছারাও এই কাজ শিখে গেছে। তাই বলে এখানে সবাই জনপ্রিয় হতে পারেনি। ইউটিউব থেকে ইনকাম করার জন্য কিছু শর্ত পূরণ করতে হবে। ১০০০ জন সাবস্ক্রাইব আর ৪০০০ ঘন্টা ওয়াজ টাইম। এই ওয়াজ টাইম তো তারাতারি পাওয়া যায় কিন্তু সাবস্ক্রাইব পাওয়া টাই টাপ বেপার। তবে ইউটিউবে একটা ভিডিও সেয়ার করে, টাইটেল আর ট্যাগ ভালো ভাবে ব্যবহার করলেই আপনার কাজ শেষ।এখানে জনপ্রিয় হতে হলে আপনাকে ধৈর্য় ধরে কাজ করে যেতে হবে।

  • তুলনামূলক আলেচনা

এই দুইটার আলোচনা পড়ে বুঝতে পারলেন তো আপনি কোনটা করতে পারবেন। তবে ইউটিউবিং তুলনা মূলক বেশী সহজ। সবচেয়ে বড় কথা এখানে ইনভেস্ট করতে হয় না। আর এটাই আমাদের জন্য সবচেয়ে প্লাস পয়েন্ট।

ধন্যবাদ সবাই কে…..?

ডিজিটাল কন্টেন্ট রাইটিং

Leave a Reply