ফেসবুকে অপদার্থের বন্ধু হওয়ার চাইতে জ্ঞানীর ফলোয়ার হওয়া ভালো

0
532
ফেসবুকে অপদার্থের বন্ধু হওয়ার চাইতে জ্ঞানীর ফলোয়ার হওয়া ভালো
ফেসবুকে অপদার্থের বন্ধু হওয়ার চাইতে জ্ঞানীর ফলোয়ার হওয়া ভালো

ফেসবুকে অপদার্থের বন্ধু হওয়ার চাইতে জ্ঞানীর ফলোয়ার হওয়া ভালো। এটা আমি ফলো করতাম সব সময় এখনো করি। মানুষকে যা ইচ্ছে তাই বলতে দিন, কোণ রিপলাই দেওয়ার দরকার নাই। কথা হজম করে যান, কথা হজম করার শক্তিটা অনেক বড়ো একটা শক্তি। এবং সেই কথা গুলোকে নিজের মধ্যে জেদ হিসাবে জমা রাখেন। এর পর যখন আপনার সময় আসবে, যখন আপনি কোন কিছু করে দেখাবেন, তখন কাউকে রিপলাই করতে হবে না। আপনার কাজটাই আপনার পক্ষথেকে ওই সমস্ত লোক জোনকে ঠাস ঠাস করে চোয়ার মারবে, ওই দিনটার জন্য অপেক্ষা করতে হবে। উত্তর দিতে হবে মুখে না কাজে।

আচ্ছা একটা গল্প বলি, যখন জিরাপ বাচ্ছা দেই তখন কি হয় জানেন কেউ, তখন করে কি ওই যে বেবি জিরাপ টাকে মা জিরাপ জেরে লাথি দেই, আর সেই জিরাপটা ভাবে কি হয়ল ভাই এই মাত্র দুনিয়াতে আসলাম এখনি লাথা লাথি শুরু হয়ছে। জোরে লাথি দেই, তখন বেবি জিরাপটা উঠে দোরাতে শুরু করে। সে পড়ে যায় তখন তার মা আবার দিগুন জোরে লাথি দেই তখন সে আবার উঠে যায়, আবার দোরাতে শুরু করে। আবার বসে তখন তার মা নিজের সর্বচ্ছ শক্তি দিয়ে আবার লাথি দেই তখন সে আর পরে না দোরাতেই থাকে, দোরাতেই থাকে।

এই বেপার টা কেন ঘটে যদিও বেবি জেরাপের মাংশ গুলো খুবি নরম খুবি সুস্বাদু, যদি সে জন্মানোর পর হাঁটতে না শেখে দোরাতে না শেখে তা হলে যেটা হবে বাঘ, সিংহ বা যে কোন হিংস্র প্রানি তাকে খেয়ে ফেলবে। সে কারণে তার মা তাকে লাথি মেরে দোরাতে শেখায় যাতে ওই বেবি জিরাপটা নিজেকে আত্তরক্ষা করতে পারে। ঠিক একই ভাবে জীবন আমাদের মাঝে মধ্যে খুব লাথি দিবে খুব অনেক জোরে লাথি দিবে। আপনি জেনে রাখেন আপনার লাইফ আপনার যে লাথি গুলো দিচ্ছে প্রত্যেকটি লাথির প্রয়োজন আপনার জীবনের আছে।

যদি সফল হতে চান তা হলে এই পোষ্ট টি আপনার জন্য       আপনি যদি হেরে যান পৃথিবীর অনেকেই কিন্তু জ্বিতে যায়

Leave a Reply